শারীরিক প্রতিবন্ধকতা হার মানাতে পারেনি নড়াইলের লিমাকে

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৩৪ AM, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

নড়াইল সংবাদদাতা : শারীরিক প্রতিবন্ধীতাও আটকে রাখতে পারেনি নড়াইলের লিমাকে। অদম্য ইচ্ছা শক্তি তাকে প্রতিনিয়ত এগিয়ে চলতে সাহায্য করছে। সে হাঁটতে পারে না। তাই ঘর থেকে বের হতে গেলেই মায়ের কোলই তার ভরসা। লিমা নড়াইলের জুড়ালিয়া জেবিএম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। সে এ বছর নড়াইল সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে।

লিমা জানায়, আমার বাবাকে দেখিনি। আমি ছোট থাকতেই বাবা মারা গেছেন। আমাদের কোনো জমিজমা নেই। মা অন্যের বাড়িতে কাজ করে আমার লেখাপড়ার খরচ জোগাড় করেন। হুইল চেয়ারে বসলেও আমার সঙ্গে কেউ না থাকলে আমি একা কোথাও যেতে পারি না।

একমাত্র সন্তানকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেন মমতাময়ী মা’ও। লিমার মা পান্না বেগম জানালেন তার কষ্টের কথা। লিমার বয়স যখন ৩ বছর, তখন ওর বাবা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপর সন্তানকে নিয়ে অসহায় হয়ে পড়েন তিনি। স্বামীর ভিটেবাড়ি নড়াইলের রতডাঙ্গা গ্রাম ছেড়ে প্রতিবন্ধী মেয়ে লিমাকে নিয়ে বাবার বাড়ি জুড়ালিয়া মহাজন গ্রামে চলে আসেন তিনি। সেই থেকে লিমাকে নিয়ে জীবনযুদ্ধে নেমে পড়েন। বাবার বাড়িতে থেকেই লিমার মা হাঁস-মুরগি পালন ও অন্যের সংসারে কাজ করে সংসার চালান। সেই সামান্য অর্থ দিয়ে লিমাকে লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষের মতো মানুষ করতে চান।

লিমার অদম্য ইচ্ছা শক্তি নিয়ে অনুপ্রাণিত তার শিক্ষক, সহপাঠী ও প্রতিবেশীরাও। নড়াইল সদরের জুড়ালিয়া জেবিএম মাধ্যমিক বিদ্যালয়র প্রধান শিক্ষক মোসলেহ উদ্দিন বলেন, লিমা একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী হলেও সে স্কুলে নিয়মিত আসতো। সাধারণ ছেলে-মেয়েরা স্কুলে অনুপস্থিত থাকলেও সে কখনও স্কুলে অনুপস্থিত থাকতো না। লেখাপড়ায় খুব মনযোগী। তার প্রতিটি ক্লাশের রেজাল্টও ভালো।আমার বিশ্বাস এসএসসি পরীক্ষায় লিমা ভালো ফলাফল করবে।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :