লুডু খেলাকে কেন্দ্র করে কথাকাটাকাটির জেরে যুবকের হাতের কবজি কেটে নিল দূর্বৃত্তরা !

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:১৮ PM, ০৫ অক্টোবর ২০২০

মৌলভীবাজার : লুডু খেলা নিয়ে কথাকাটাকাটিতে লমৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে রনি আহমেদ (২১) নামে এক যুবকের হাতের কবজি কেটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টায় উপজেলার আদমপুর ইউপির উত্তরভাগ এলাকার রফিক ড্রাইভারের বাড়ির সামনের রাস্তার ওপরে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ বিষয়ে চারজনকে আসামি করে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছেন আহত রনির মামা দেলোয়ার হোসেন। বর্তমানে রনি সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

কমলগঞ্জ থানার মামলা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টায় উপজেলার আদমপুর ইউপির উত্তরভাগ এলাকার মাসুক মিয়ার ছেলে উজ্জ্বল মিয়ার বাড়িতে প্রতিদিন লুডু খেলা দেখতে যায়। ঘটনার দিন আহত রনি আহমেদ, হেলাল মিয়া, ময়না মিয়া ও উজ্জ্বল মিয়া মিলে মৃত ইছন মিয়ার ছেলে হায়াত মিয়ার বাড়ির বারান্দায় লুডু খেলছিল। লুডু খেলার একপর্যায়ে রনি, হেলাল ও ময়নার সাথে উজ্জ্বল মিয়ার কথাকাটাকাটি হয়।

একপর্যায়ে উজ্জল মিয়া রনিকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে ও রনিকে মারধরের জন্য আবুল হোসেন, মাসুক মিয়া ও তাজু মিয়াকে ডেকে আনে। তখন আবুল হোসেন তার বাড়ি থেকে ধারালো দা নিয়ে এসে রনিকে প্রাণে মেরে ফেলার জন্য তার মাথা লক্ষ্য করে কোপ মারলে রনি হাত দিয়ে আটকানোর চেষ্টা করে। এতে তার বাম হাতের কবজির ওপরের অংশ হাত থেকে আলাদা হয়ে যায়।

তখন রনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে উজ্জ্বল মিয়া, আবুল হোসেন, মাসুক মিয়া ও তাজু মিয়া মিলে বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি ও হুমকি দেখিয়ে চলে যায়।

রনির চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য দ্রুত মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতারে রেফার্ড করেন। বর্তমানে সে সেখানে চিকিৎসাধীন।

কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :