ভালবাসার টানে সহপাঠির হাত ধরে বাড়ী ছেড়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ে এইচএসসি পরীক্ষার্থী তরুণী

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:৫৯ PM, ০৫ এপ্রিল ২০১৬

সাদ্দাম হোসেন, সিনিয়র ষ্টাফ রিপোর্টার : ভালবাসার কোনো বর্ণ নেই,ধর্ম নেই। যেন ভালবাসার মানুষের জন্যই বেঁচে থাকা এমনি অমুলিন কথা বলে গেছেন প্রয়াত কবি হুমায়ুন আহমেদ। আর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তো বলেই গেছেন, প্রেমের ফাঁদ পাতা ভূবনে, কখন কে ধরা পড়ে কে জানে। বাংলা গানের সম্রাট’ সৈয়দ আব্দুল করিম  প্রেমিকাকে না পেয়ে ভরাক্রান্ত হৃদয়ে লিখেছেন বিখ্যাত সেই গানটি কেন পিরিতি বাড়াইলারে বন্ধু ছেড়ে যাইবা যদি। এখনকার আধুনিক যুগের রোমিও জুলিয়টরা ও হারাতে চায়না তাদের ভালবাসার মানুষকে। প্রেমের কারণে বাবা-মা, ভাই-বোন এবং আত্মীয় স্বজনের মায়া ত্যাগ করে শুধু প্রেমিক-প্রেমিকার সাথে মিলনের জন্য আকুল হয়ে ওঠে। ধর্ম পর্যন্ত ত্যাগ করে। এ রকম ঘটনা ঘটে সমাজে অহরহ। এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে ঠাকুরগাঁও জেলার আরাজী শিং পাড়া গ্রামে।

ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার আরাজী শিং পাড়া গ্রামের মুসলিম পরিবার আব্দুস সালামের মেয়ে এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী সাবিনা ইয়াসমিন( ১৮) ও সাওতাল উপজাতি ধর্মালম্বী আন্ধারুর ছেলে সেও এবারের এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী দীলিপ কুমার(১৯) নামে প্রেমের টানে প্রথম বাংলা পরীক্ষা দিয়ে কাল শেষে ঘর ছেড়েছেন।

স্থানীয় সুত্রে যানা গেছে, গত দুই বছর ধরে তাদের এই সম্পর্ক চলছিল। ছেলে মেয়ের পরিবার উভয়েই এই বিষয়ে জানে। ৮ মাস আগে দীলিপ কুমার মুসলিম মেয়ে সাবিনার জন্য বিষ পানে আতœাহত্তার চেষ্টা করে। এ যাত্রাই বেচে গেলেও তাদের সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠতা পায়।

জানা গেছে, ছেলে মেয়ে দুজনেই এবারের এইচএসসি পরিক্ষার্থী । এ বিষয়ে থানায় কোন মামলা হয়নি। তবে দুই পরিবারের পক্ষ থেকেই খোঁজ চলছে।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :