ব্যবসায়িরা ভীত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েন, ভ্যাট নিয়ে এমন কোন নীতি করার প্রয়োজন নেই

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:৩১ PM, ২৮ জানুয়ারী ২০১৬

ডেস্ক রিপোর্ট : ব্যবসায়িরা ভীত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েন, ভ্যাট নিয়ে এমন কোন নীতি করার প্রয়োজন নেই। আর হয়রানীর আশঙ্কায় র‌্যাবকে ভ্যাট আদায়ের আইনি অধিকার দেয়ারও বিরোধিতা করছেন ব্যবসায়ীরা। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) র‌্যাবকে ভ্যাট আদায়ের আইনি অধিকার দিয়ে ব্যবসায়ীদের আতঙ্কিত না করার আশা ব্যক্ত করেছেন এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ। ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) ভবনে আয়োজিত কর্মপরিকল্পনা নিয়ে গণমাধ্যমের সাথে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।
এফবিসিসি আই পরিচালক আবু নাসের বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে বিনিয়োগ আস্থার পরিবেশ ও রাজনৈতিক সংঙ্কট চলছে। জ্বালানী সমস্যার চেয়ে এটি ভয়াবহ সমস্যা। এসব কারণে বিনিয়োগ হচ্ছে না। এফবিসিসিআই’র পরিচালক হেলাল উদ্দিন বলেন, এই মুহুর্তে বাংলাদেশে বিদেশী বিনিয়োগ দরকার নেই। বাংলাদেশে যে পরিমাণ অলস অর্থ পড়ে আছে তা আমাদের জন্য যথেষ্ট। আমাদের গ্যাস দেন, জ্বালানী নিরাপত্তা দেন স্থানীয় বিনিয়োগেই ভরে উঠবে দেশ। এজন্য তিনি বর্তমানে বিনিয়োগের স্বার্থে বিশ্ব বাজারের তেলের দামের সাথে গ্যাসের দামের সমন্বয় করা দরকার। শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, আস্থা ও রাজনৈতিক সংকটের কারণে এখানে বিনিয়োগ পরিবেশ গড়ে উঠেনি। তবে বর্তমানে সেই অবস্থা নেই। গত দুই বছর আগে যে অবস্থা ছিল, এখন সেই অবস্থা কেটে গেছে বলে জানান তিনি।
এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ‘এনবিআরকে বলেছি, আমাদের অশান্তি করলে আমরা ব্যবসা করতে পারবো না। আর ব্যবসা না করতে পারলে আমরা ভ্যাট দিবো কোথা থেকে। র‌্যাবের মাধ্যমে ভ্যাট আদায়ের উদ্যোগ অযৌক্তিক। এতে ব্যবসায়ীরা আতঙ্কিত। এটা আমাদের মন:পুত হয়নি। অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি শফিউল আলম মহিউদ্দিন বলেন, বর্তমানে গ্যাসের অভাবে বিনিয়োগে স্থবিরতা রয়েছে। আমাদের এখানে সুদের হার অনেক বেশি। আর এটা বিশ্বে সুদ হার বেশি দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষে। এছাড়া, বিশ্ববাজারে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ১১০ ডলার থেকে কমে ৩০ ডলারে নেমে এসেছে। এতে অন্যান্য দেশে উৎপাদন খরচ কমে আসছে। আর আমাদের এখানে এখনো তেলের দাম সমন্বয় করা হয়নি। তাই আমরা প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ছি।

দেশে বিনিয়োগ পরিবেশ না থাকায় বাইরে টাকা পাচার হচ্ছে কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে জবাবে মহিউদ্দিন বলেন, এটি পাচার না প্রধানমন্ত্রীও চাচ্ছেন আমারা বিদেশে বিনিয়োগ করি। ইতোমধ্যে তিনি ডিবিএল গ্রুপকে বাইরে বিনিয়োগ করার অনুমোদন দিয়েছেন। তবে এটি লিগাল ফ্রেমওর্য়াকের মাধ্যমে হওয়া উচিত। তিনি আরো বলেন, টাকা আর পানিকে ক্যাপিটাল শাস্তি দিয়ে ধরে রাখা যাবে না। দেশে বিনিয়োগ পরিবেশ না থাকলে তা বাইরে যাবেই। কারণ উদ্যোক্তারা তাদের সন্তানদের এবং বিনিয়োগকৃত অর্থের নিশ্চয়তা চান। আর বাংলাদেশে শিল্পকারখানা করার জমির উচ্চ মূল্য, ব্যাংক সুদের হার বিনিয়োগের জন্য বড় সমস্যা বলে জানান তিনি।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :