বোদায় বিলুপ্ত প্রায় ধামের গান ও পিঠা উৎসব শুরু

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:৪১ PM, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

সাজ্জাদ হাসান আল তারিক সবুজ বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি: “হই শেকড় সন্ধানী প্রত্যয়ে উজ্জীবৃত” স্লোগান নিয়ে উপজেলা প্রশাসন  বোদা ও হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড এর যৌথ আয়োজনে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদ বটমূল চত্বরে শুরু হয় ৩ দিন ব্যাপি ধামের গান ও পিঠা উৎসব ২০১৬। পঞ্চগড় -২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন আনুষ্ঠনিক ভাবে এ উৎসবের উদ্ধোধন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু আউয়াল এর সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত এই উৎসবে বিশেষ অতিথি ছিলেন পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক সালাউদ্দীন আহম্মেদ, পঞ্চগড় জেলা পুলিশ সুপার গিয়াস উদ্দীন। সভায় প্রধান অতিথি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন এম,পি বলেন, হুলির ধাম  বা ধামের গান এই অঞ্চলের একটি ঐতিহ্য বহন করে। এই ঐতিহ্য যাতে হারিয়ে না যায় তাই সংস্কৃতি মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে বিলুপ্ত প্রায় হুলির ধামের স্বীকৃতি ও প্রসারের চেষ্ঠা করা হবে। এর আগে বেলা ৩.০০ টায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে অনুষ্ঠিত হয় সেমিনার “লোকনাট্য প্রসঙ্গ ও ধামের গান”। এতে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক মনতোষ কুমার দে। আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের অধ্যাপক ইসরাফিল শাহিন, বোদা পাথরাজ মহাবিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ফারুক আলম টবি,পঞ্চগড় এম আর সরকারী কলেজের সহকারী অধ্যাপক মনিশংকর দাস গুপ্ত, বোদা পাথরাজ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যাপক প্রবীর কুমার চন্দ সহ প্রমুখ।
তিন দিন ব্যাপি এই উৎসবে থাকছে বিভিন্ন পদের পিঠা,পায়েস,বিষমুক্ত অর্গানিক শস্য সম্ভার এবং ধামের গান। উৎসবের ১ম দিন কচুবাড়ী পালাটিয়া দল ঠাকুরগাওয়ের  পরিবেশনায় মঞ্চস্থ হয় ধামের গান “ হাউশের বিহাই অঙ্গিলা বিহানী” বালাভীর পালাটিয়া দল বোদার পরিবেশনায় “পাশ করা কামাইল”।  এছাড়া মেলায় ২য় দিন মঞ্চস্থ হবে চুচলি বটতলী পালাটিয়া দল আটোয়ারী এর পরিবেশনায় “ বৌমার মিসকল” নাঙ্গলগ্রাম শাপলা পালাটিয়া দল বোদার পরিবেশনায় “দশ নম্বর আড়ি হাকু দাকু অধিকারী” ৩য় দিন মঞ্চস্থ হবে খলিশাকুড়ি পালাটিয়া দল ঠাকুরগাওয়ের পরিবেশনায়  “হরিবল সাধু মাইয়ার গুরু”।
প্রসঙ্গত বৃহত্তর দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী, বিলুপ্ত প্রায় ধামের গান ও পিঠা পায়েসের বৈচিত্র ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে আয়োজন করা হয় এই উৎসব। ধামের আভিধানিক অর্থ গৃহ বা স্থান। স্থানীয় ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে যে স্থানে পূন্যার্থীদের সমাগম হয় তাকেও ধাম বলে। উৎসবের আনন্দ ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশে যে সাংস্কৃতিক আয়োজন বা পরিবেশনা তাই মুলত ধামের গান বা হুলির ধাম। নৃত্য, গীত ও অভিনয়ের মাধ্যমে পুরুষ শিল্পিরাই মেয়ে সেজে একটি কাহিনী ফুটিয়ে তোলে। আসরে বসেই আঞ্চলিক ভাষায় তাৎক্ষনিকভাবে এ গান রচিত ও পরিবেশন করেন ধামের গানের  গ্রামীণ শিল্পিরা।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :