বীরগঞ্জে ২২টি চোরাই মোটর সাইকেল বিক্রির অপরাধে এসআই জাহাঙ্গীরকে জেল হাজতে প্রেরন

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:১৭ AM, ০৩ জুন ২০১৬

মোঃ নজরুল ইসলাম খান বুলু , বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে : বীরগঞ্জ থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম এর বিরুদ্ধে ম্যাজিষ্ট্রেটের সীলমোহর যুক্ত স্বাক্ষর জালিয়াতির মাধ্যমে বাইশটি ‘চোরাই’ মোটরসাইকেল বিক্রির অভিযোগে দায়ের হওয়া দুটি মামলায় আদালতে এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন ও অভিযুক্ত আবু সাঈদ আত্মসমর্পন করেন। বিজ্ঞ বিচারক জামিন না মঞ্জুর করে তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। গত বুধবার দিনাজপুরের বীরগঞ্জ আমলী আদালত-২ এর বিচারক অতিরিক্ত মূখ্য বিচারিক হাকিম এফএম এহসানুল কবীর এ আদেশ দেন। এসআই জাহাঙ্গীর আলম বর্তমানে রাজশাহী রেঞ্জের গোদাগাড়ি থানায় কর্মরত। বীরগঞ্জ থানায় কর্মরত থাকা অবস্থায় জাহাঙ্গীর আলম দিনাজপুর অতিরিক্ত মূখ্য বিচারিক হাকিম এফএম এহসানুল হকের স্বাক্ষর জাল করে ২২টি চোরাই মোটর সাইকেল বিক্রি করেছে বলে মোটরসাইকেল ক্রেতা, বীরগঞ্জ থানা ও ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত সূত্রে জানা যায়। ওই ঘটনায় গত ৯মে জ্যেষ্ঠ বিচারিক আদালতের পেশকার মোঃ মামুন হাসান দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় ও মোটর সাইকেল ক্রেতা আব্দুল গফ্ফার আমলী আদালত-২ এ মামলা দায়ের  করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ওই দিনই এসআই জাহাঙ্গীর আলম ও আন্তঃজেলা মোটর সাইকেল ছিনতাইকারী দলের সরদার বীরগঞ্জ উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের আওলাখুড়ী গ্রামের মৃত মাওঃ আবু তাহেরের পুত্র আবু সাঈদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। উল্লেখ্য, দীর্ঘ ২০ দিন আদালতের আদেশ উপেক্ষা ও পুলিশের চোখকে ফাঁকি দিয়ে এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন ও আবু সাঈদ আত্মগোপন করেছিল ।

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :