বিদ্যালয়ে ভর্তি লটারি; ২৩৯ জন ভাই পেল এক বোন !

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৩৯ PM, ১৩ জানুয়ারী ২০২১

নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনার কারণে এ বছর দেশের সরকারী বিদ্যালয়গুলোতে লটারিতে দেয়া হয়েছে ভর্তির সুযোগ। গত ১১ জানুয়ারী অনলাইনে প্রকাশ করা হয় ভর্তির ফলাফল। এর মধ্যে ঠাকুরগাঁওয়ের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়েরও ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ঠাকুরগাঁও সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের তালিকায় একজন মেয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। যা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চলছে নানা সমালোচনা, আবার কেউ কেউ করছেন রশিকতাও।

ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে লটারীতে ভর্তির সুযোগ পাওয়া মেয়েটির নাম ওয়াসিমা আক্তার লুবনা। সে তৃতীয় শ্রেণিতে ডে শিফটে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছে।তার বাড়ী ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার সনগাও গ্রামে।

ছেলেদের স্কুলে মেয়ের চান্স পাওয়া নিয়ে ফেসবুকে কেউ কেউ লিখেছেন, লটারীর কারণে মেয়েরাও এখন ছেলেদের স্কুলে পড়ালেখা করার সুযোগ পাচ্ছে, সাবাস ডিজিটাল বাংলাদেশ! আবার কেউ লিখেছেন দুই শিফট মিলে ২৩৯ ভাই পেলো একজন বোন। আজ লটারি ছিলো বলেই এভাবে ভাই বোন মিলেমিশে বালক স্কুলে পড়ার সুযোগ পেলো।

তবে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, অভিভাবকদের ভুলেই এ কাণ্ড ঘটেছে।

এ বিষয়ে বালক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পিজুস কান্ত রায় বলেন, ‘ওই ছাত্রী শিক্ষার্থীকে অন্য কোথাও ভর্তি নেয়া হবে কি না সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এখানে আমাদের বলার কিছু নেই।’

কিভাবে বালক বিদ্যালয়ে একজন মেয়ে ভর্তির সুযোগ পেল, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অভিভাবকের ভুলের কারণে এমন হয়েছে। কারণ, ভর্তির ফরমে পাঁচটি বিদ্যালয়ের নাম থাকে। ওই পাঁচটির মধ্যে যেকোনো বিদ্যালয় অভিভাবকরা সিলেক্ট করেন। এখানে হয়তো ভুলে তারা ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় সিলেক্ট করেছিলেন। যে কারণে লটারিতে বালক বিদ্যালয়ে সে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে।’

ওই শিক্ষার্থীর বাবা মাদরাসা শিক্ষক হায়দার আলি জানান, আবেদন প্রক্রিয়ায় আমার কোনো ভুল ছিলো না। এখন আমি কি করবো কিছুই বুঝতে পারছি না। তাই সকলের সাহায্য কামনা করছি।

বিডি

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :