বিদেশে নারী পাচারের অপরাধে বীরগঞ্জে ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:২৪ AM, ০২ এপ্রিল ২০১৭

নজরুল ইসলাম খান বুলু, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : বিদেশে নারী পাচারের অপরাধে বীরগঞ্জে ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পাচার হওয়া চম্পার মেয়ে মোছাঃ মুন্নি আক্তার বাদী হয়ে বাংলাদেশ দন্ড বিধি ২০১২ইং সালের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনের ৩(১-খ,গ), ৬ (২)/৭/৮/৯ ধারায় ১৪(০৩)১৭ নং-মামলাটি দায়ের করেছে।

বীরগঞ্জ পৌরসভার ৫নং-ওয়ার্ডের শান্তিবাগ মহল্লার বাসিন্দা সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী মোছাঃ মুন্নি আক্তার (২৪) প্রেসক্লাব কার্যালয়ে এক লিখিত অভিযোগে জানান, একই এলাকার একরামুল হায়দার চৌধুরীর ছেলে হাবিবুর নবি আশিকুর রহমান ওরফে আকাশ তার স্ত্রী কামরুন নাহার ও আবুল কাসেমের ছেলে আব্দুল হাকিম দলবদ্ধ হয়ে ১লাখ ৫০হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে আমার মা চম্পা বেগমকে শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দর নিয়ে গিয়ে সৌদি আরবে পাচার করে।

সেখানে বিভিন্ন বাড়ীতে আটক রেখে পতিতাবৃত্তি কাজে বাধ্য করেছে বলে মুন্নির মা-চম্পা বেগম মোবাইল ফোনে মেয়ে মুন্নিকে জানিয়েছে। মুন্নি আক্তার মা-কে উদ্ধার করে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার জন্যর পাচারকারী চক্রের সাথে যোগাযোগ করলে তারা পুনরায় ২লাখ টাকা দাবি করে। পাচারকারী চক্রের দাবি মোতাবেক অনেক কষ্টে মুন্নি পাচারকারী দলের দাবির টাকা দিয়েছে।

পাচারকারী চক্র মেয়ে মুন্নি আক্তার পাচার হওয়া মা-চম্পা বেগমকে সৌদি আরব থেকে এনে দিব-দিচ্ছি বলে ফিরিয়ে দিচ্ছেনা পাচারকারী দল। উল্লেখিত ঘটনায় পাচার হওয়া চম্পার মেয়ে মোছাঃ মুন্নি আক্তার বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

নারী পাচার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মোছাঃ রুমী আক্তার, নজরুল ইসলাম, আয়শা আক্তার রুমী, শাহানাজ পারভিন, মাহাবুবার আঙ্গুর, রতন কুমার ঘোষ পিযুষ, মোছাঃ নার্গিশ আক্তার, মোঃ মোশারফ হোসেন বাবুল, সিদ্দিক হোসেন ও অন্যরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জড়িতদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির জোর দাবি জানান।।

এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত পাচার হওয়া চম্পা বেগমকে উদ্ধার বা পাচারকারীদের পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পাচারকারী দল বাড়ী-ঘর ছেড়ে পালিয়ে গেছে। তাদের অনুসন্ধান ও গ্রেফতার করার জোর তৎপরতা চলছে।

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :