বাংলাদেশেও বন্ধ হতে পারে জাকির নায়েক এর পিস টিভি

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:০৮ PM, ১০ জুলাই ২০১৬

ঠাকুরগাঁওয়ের খবর ডেস্ক : গুলশান হামলার পর ভারত সরকার বিতর্কিত ধর্মগুরু জাকির নায়েক পরিচালিত পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে । ইসলামী রিসার্চ ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন ও পিস টিভির প্রতিষ্ঠাতা জাকির নায়েক নিজেও নজরদারির মধ্যে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

ভারতের গোয়েন্দারা তদন্ত করে জানতে পেরেছেন গুলশান হামলায় অংশ নেয়া একাধিক হামলাকারী জাকির নায়েকের পিস টিভির ভাষণ থেকে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন।

এ পরিস্থিতিতে দেশেও বিভিন্ন মহল থেকে দাবি উঠেছে পিস টিভি বন্ধের। ইতোমধ্যেই শনিবার বিকেল থেকে রাজধানীর বেশিরভাগ কেবল অপারেটর পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ  রেখেছেন।

অবশ্য পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ বিষয়ে যদিও তথ্য মন্ত্রণালয় এখনো কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি। তবে রোববার ( ১০ জুলাই) আইনশৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকের পর পিস টিভি বন্ধের ঘোষণা আসতে পারে বলে জানা গেছে নির্ভরযোগ্য সূত্রে।

ঈদের ছুটি থাকায় বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের বিষয়ে মন্ত্রণালয় কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বলে জানিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়।

শনিবার বিকেলে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু সংবাদমাধ্যমকে জানান, রোববার আইনশৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক হবে। সেখানে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হতে পারে।

এদিকে তরুণদের জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ করার পেছনে জাকির নায়েকের প্রচারণার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো এ ব্যাপারে তদন্ত করছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা তদন্ত করে দেখছে তার কর্মকাণ্ড ও বক্তৃতা প্ররোচনামূলক ছিল কি না। বাংলাদেশে জাকির নায়েকের অর্থ লেনদেনের বিষয়গুলোও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে ভারতের বিতর্কিত ইসলামী বক্তা জাকির নায়েক পরিচালিত পিস টেলিভিশনে তার বক্তব্য জঙ্গি কর্মকাণ্ড উসকে দেয়—উপমহাদেশের বিভিন্ন মহল থেকে এমন অভিযোগ জোরালো হচ্ছে। বিতর্কিত মতামত সম্প্রচারের অভিযোগে সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে পিস টিভি ও জাকির নায়েকের বক্তব্য সম্প্রচার আগে থেকেই নিষিদ্ধ রয়েছে। জানা গেছে, পিস টিভির আর্থ স্টেশন সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে জাকিরের বক্তব্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দক্ষিণ এশিয়ার বহু তরুণ জঙ্গিবাদে ঝুঁকছে। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে সরাসরি তরুণদের আইএসে যোগ দিতে উদ্বুদ্ধ করার অভিযোগ রয়েছে। তার বক্তব্যে উদ্বুদ্ধ চার তরুণ আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসে যোগ দিয়েছে বলে ভারত সরকারের কাছে প্রমাণ আছে।

এছাড়া ঢাকার গুলশান হামলার পর হামলাকারীদের মধ্যে জাকির অনুসারী ছিল এমন তথ্য পাওয়ার পর এ নিয়ে ভারতে যাচাই-বাছাই শুরু হয়। ভারত সরকার বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক অনুরোধের দিকে চেয়ে না থেকে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে কেবল অপারেটরদের। এছাড়া ভারতের মহারাষ্ট্র সরকার জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে।

ভারতে সম্প্রচার বন্ধের পর তথ্য মন্ত্রণালয় কোনো সিদ্ধান্ত না নিলেও স্বউদ্যোগে শনিবার থেকে রাজধানীর প্রায় ৪০ শতাংশ এলাকায় পিস টিভি সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছেন অপারেটররা। কেবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ডিজি টোয়েন্টি ওয়ান সিস্টেমস লিমিটেডের চেয়ারম্যান এস এম আনোয়ার পারভেজ শনিবার বিকেলে একটি পত্রিকাকে জানান, ‘ঢাকায় পিস টিভি সম্প্রচার করে থাকে ১২-১৩টি কেবল টিভি সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান। তার মধ্যে আমাদের ডিজি টোয়েন্টি ওয়ান সিস্টেমস লিমিটেডের আওতাধীন এলাকায় বিকেল থেকেই সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছি। গুলশান, বনানী, বারিধারা ধানমণ্ডির কিছু অংশ, মগবাজার, মালিবাগ, উত্তরা, ডেমরা, মাতুয়াইল, রায়েরবাজার, শংকর, রামপুরা, হাজীপাড়া, নিকুঞ্জ, খিলক্ষেত, খিলগাঁও, মধুবাগসহ বিভিন্ন এলাকায় পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ আছে।’

কেবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর একটি সূত্র জানায়, ঢাকার অপারেটররা পিস টিভি সর্বত্রই বন্ধ করে দিতে পারেন। তবে নিয়ন্ত্রণ তথ্য মন্ত্রণালয়ের হাতে থাকায় তারা সরকারি নির্দেশের অপেক্ষায় আছেন।

টিভি চ্যানেল সম্প্রচারের এখতিয়ার আগে কেবল অপারেটরদের হাতে ছিল। তবে পাঁচ বছর ধরে তথ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী চ্যানেল সম্প্রচার করছেন তাঁরা।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :