প্রেমিক-প্রেমিকাকে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ার সুযোগ করে দিয়ে যা করল বাড়ীর মালিক…..

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৩০ PM, ১২ অগাস্ট ২০২০

কিশোরগঞ্জ : প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে প্রেমিক যুবক আরিফ মিয়াকে (১৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রেমিক যুবক আরিফ উপজেলার মানিকদি গ্রামের বাদল মিয়ার ছেলে আরিফ। গত মঙ্গলবার রাতে পুলিশ প্রেমিকাসহ আরিফকে তার এলাকা থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এদিন সন্ধ্যায় তারা দুজন এলাকার আলম মিয়া নামের এক ব্যক্তির সহায়তায় তার বাসায় অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়।আর এ কাজের সুযোগ করে দেয় বাড়ীর মালিক আলম মিয়া। পরে আলম মিয়ার অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিষয়টি এলাকাবাসিকে জানিয়ে দেয় বাড়ীর মালিক আলম। এ সময় ঘটনাটি দেখে এলাকাবাসী প্রেমিক-প্রেমিকাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।পরে রাত সাড়ে ১১টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনকে আটক করে।

প্রেমিকা বয়সে কিশোরী (১৪) হওয়ায় তার বাবা খবর পেয়ে থানায় এসে প্রেমিকসহ দুজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করে। মামলার আরেক আসামি হলো বাড়ীর মালিক আলম মিয়া।

স্থানীয়রা জানায়, আরিফের সঙ্গে বেশ কয়েকমাস যাবত কিশোরীর প্রেম চলছিল। মঙ্গলবার বিকালে কিশোরী নিজেই প্রেমিককে ফোন দিয়ে ঘটনাস্থল আলমের বাড়িতে আসে। এসময় উভয়ের সম্মতিতে তার বাসার একটি কক্ষে দুজনের শারীরিক মেলামেশা হয়। এরপর বাড়ির মালিক আলম জোর করে কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে চায়। কিন্ত কিশোরী এতে সাড়া না দেয়ায় তিনি এলাকার লোকজনসহ পুলিশকে খবর দিলে তাদের আটক করা হয়।

প্রেমিক কিশোরীর সঙ্গে রাতে থানায় গণমাধ্যমকর্মীদের কথা হয়। এসময় সে জানায়, আরিফ তাকে ধর্ষন করেনি। দুজনের ইচ্ছায় শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে।

ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহিন বলেন, ঘটনাটি প্রেমঘটিত হলেও কিশোরীর বিয়ের বয়স হয়নি। সে নাবালিকা এবং বয়স ১৪। আইনগতভাবে এ বয়সে শারীরিক মেলামেশা ধর্ষণ হিসেবেই গণ্য হবে। তাদেরকে ঘটনাস্থলে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশকে খবর দেয়।

ওসিিআরও বলেন, এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা মামলা করেছেন। এতে পুলিশের কিছুই করার নেই। মামলাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডি

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :