পীরগঞ্জে ২ শিক্ষকের বিরুদ্ধে দু’টি করে প্রতিষ্ঠানে চাকুরীর অভিযোগ;তদন্তের নির্দেশ শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৫৩ PM, ৩১ জানুয়ারী ২০১৬

পীরগঞ্জ প্রতিনিধি : জেলার রানীশংকৈল উপজেলার নেকমরদে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক দম্পতির বিরুদ্ধে একই সাথে দু’টি করে বিদ্যালয়ে চাকুরীর অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। জানা যায়, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ফাড়াবাড়ী  কুসুম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হামিদুল হক বুলবুল ১৯৯৫ সাল থেকে এমপিওভুক্ত (ইনডেক্স নং-২৯৫৪৯৩)শিক্ষক হিসেবে এবং তার স্ত্রী আন্জু মান আরা রহিম সহকারী শিক্ষক হিসেবে করনাইট আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে (ইনডেক্স নং ৫৪২৪৪৯) ১৯৯৭ ইং সাল হতে চাকুরী করার পাশাপাশি নেকমরদ এলাকায় সানফ্লাওয়ার কেজি স্কুল প্রতিষ্ঠা করে একজন প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং একজন সহকারী শিক্ষক হিসেবে চাকুরী করে আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে আসছেন। শিক্ষক হিসেবে এমপিও ভুক্তির আগে থেকেই এই দুই শিক্ষক সানফ্লাওয়ার স্কুলে কর্মরত ছিলেন  এবং অদ্যাবধি আছেন। এ বিষয়ে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মো. খয়রাত আলী এই শিক্ষক দম্পতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে আবেদন করলে মন্ত্রনালয়ের উপ-সচিব সালমা জাহান স্বাক্ষরিত স্বারক নং ৭১৯, তারিখ ০৬.০১.১৬ ইং পত্রে অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুরের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন। এ বিষয়ে স্কুল শিক্ষক হামিদুল হক বুলবুলের ০১৭১৯৫৪১৫৮৯ নাম্বারে একাধিকবার ফোন করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি তবে শিক্ষিকা আন্জু মান আরা দুইটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করার কথা স্বীকার করে বলেন, এটা একটা সেবামূলক কাজ, এটাতে দোষের কিছু নেই। তিনি আরো বলেন, ডাক্তাররাও তো চাকুরী করে ক্লিনিক চালায়।

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :