পঞ্চগড়ে গভীর রাতে কলেজের পরিত্যক্ত ভবন থেকে প্রাইভেট শিক্ষকসহ ছাত্রী জনতার হাতে আটক !

পঞ্চগড় প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ে গভীর রাতে প্রাইভেট পড়ানো শিক্ষকের সাথে ছাত্রীকে আপত্তিকর অবস্থায় হাতে-নাতে আটক করেছে এলাকাবাসী।

ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড় সদর উপজেলার ঝলই শালশিরি ইউনিয়নে।ওই এলাকার আমলাহার ডিগ্রী কলেজের একটি পরিত্যক্ত ভবন থেকে শ্রী উজ্জল অধিকারী (২৮) নামের ওই প্রাইভেট শিক্ষককে গভীর রাতে তার ১০ম শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুল ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় হাতে-নাতে আটক করে স্থানীয় জনতা।

শ্রী উজ্জ্বল অধিকারী ঝলই শালশিরি ইউনিয়নের হিন্দু পরিবারের হরিপুর গ্রামের রূপ নারায়ণের ছেলে। সে পঞ্চগড়ের মকবুলার রহমান সরকারি কলেজের ছাত্র। ইংরেজি বিষয়ে ভালো পারদর্শী হওয়ায় সে এলাকায় গৃহশিক্ষক হিসেবে বেশ পরিচিত।

জানা যায়, ওই স্কুল ছাত্রীকে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে ইংরেজি বিষয়ে পড়াতো উজ্জল। একপর্যায়ে তাদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হলে এর আগেও কয়েকবার উজ্জ্বল অধিকারীকে সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আমলাহার ডিগ্রী একটি পরিত্যক্ত ভবন থেকে দশম শ্রেণীর ওই স্কুল ছাত্রীর সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকা অবস্থায় তাকে আটক করা হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তাকে হাতেনাতে ধরা অবস্থায় উপস্থিত ছিলেন এমন একজন জানান, আমরা কয়েকজন আমলাহার কলেজ মাঠ দিয়ে বাসায় যাচ্ছিলাম এমন সময় সেখানে দুইজন ছেলে-মেয়েকে দেখতে পাই। কিছুক্ষণ পর তাদের দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করলে তাদের একটি পরিত্যক্ত ভবনে অসামাজিক অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে দেখি তারা এলাকায় পরিচিত হিসেবে গৃহশিক্ষক উজ্জল অধিকারী ও পার্শ্ববর্তী এক ভাইয়ের স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে। এসময় মেয়ের বাবাকে খবর দেওয়া হয়। উনি এসে দু’জনকেই বাড়িতে নিয়ে যায়।

এদিকে উজ্জল অধিকারীর পরিবারকে খবর দিলে সময়মত তারা না আসায় রাত ২ টার দিকে পঞ্চগড় থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে ছেলেটিকে থানায় নিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু আক্কাছ আহম্মদ জানান,, খবর পেয়ে পঞ্চগড় থানা পুলিশের একটি টহল টিম এলাকায় গিয়ে জনতার হাতে ছাত্রীর সঙ্গে আটক হওয়া যুবককে থানায় নিয়ে আসে। অভিযোগের ভিত্তিতে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি

Leave a Reply