দেবীগঞ্জে সন্ত গৌড়ীয় মঠের পুরোহিতকে গলা কেঁটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৫১ PM, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

পঞ্চগড় সংবাদদাতা : পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার শ্রী শ্রী সন্ত গৌড়ীয় মঠের প্রধান পুরোহিত যজ্ঞেশ্বর রায়কে (৫০) গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় মঠের সেবক গোপাল রায় (৩৫)কে হত্যার চেষ্টা করলেও গুলি ফুরিয়ে যাওয়ায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। এই ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী গোপাল চন্দ্র (৩৫) এখন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত অবস্থায়  রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গোপালয় রায় বলেন, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে আমি মঠের রান্নাঘরে কাজ করছিলাম। প্রথমে গুলির শব্দ শুনি। পরে গুরুজি যজ্ঞেশ্বর রায়ের চিৎকার শুনে রান্না ঘর থেকে বের হতেই দেখি প্যান্ট ও মুখোশ পরিহিত দুই ব্যক্তি গুরুজিকে মেরে আমাকে দেখা মাত্র আমার বুকে গুলি ছুঁড়তে থাকে। আমি মাথা নিচু করে ফেললে বাঁ হাতে দুটি গুলি লাগে।

তিনি বলেন, এরপরও তারা গুলি করতে চেষ্টা করলে পিস্তল থেকে গুলি আর বের হচ্ছিল না। তখন তারা পিস্তলে গুলি ভরার জন্য পকেট থেকে গুলি বের করছিল। এই ফাঁকে আমি মঠের দেয়াল টপকে বাইরে এসে চিৎকার করতে থাকি। সে সময় পর পর কয়েকটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পাই।

পুরোহিত গোপাল জানান, হামলাকারীরা ছিল তিনজন। তাদের মধ্যে একজন মঠের বাইরে পাকা রাস্তায় মোটরসাইকেল নিয়ে অপেক্ষায় ছিল। বাকি দুজন মঠে ঢুকে গুলি চালায়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনাহার ইউনিয়নের কান্তুপাড়া গ্রামের যজ্ঞেশ্বর রায় ওরফে ভক্তি নিলয় ১৮ বছর আগে সংসারের মায়া ত্যাগ করেন। পরে তিনি করতোয়া নদীর পাশে শ্রী শ্রী সন্ত গৌড়ীয় মঠ প্রতিষ্ঠা করেন। মঠের পাশে একটি টিনশেড বাড়িতে থাকতেন।

অন্যদিকে গোপাল রায় স্থানীয় দেবীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে পিয়নের চাকরি করলেও সেবক হিসেবে মঠেও কাজ করেন। তার স্ত্রীর নাম কুন্তী রানী রায়। গুলিবিদ্ধ স্বামীর সঙ্গে তিনি রমেক হাসপাতালে এসেছেন। স্বামীর সুস্থতার জন্য তিনি সবার কাছে আশীর্বাদ কামনা করেছেন।

রমেক হাসপাতালের হাসপাতালের অর্থপেডিক ওয়ার্ডে বিভাগীয় প্রধান চিকিৎসক শফিকুল ইসলামের তত্বাবধানে গোপাল রায়কে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রমেক হাসপাতালের কর্তবরত চিকিৎসক কাজী মহসিনা সুলতানা জানান, তার অবস্থা শংকামুক্ত। গুলি হাতের মাংসপেশি ভেদ করে বেরিয়ে গেছে। তাকে গভীর পর্যবেক্ষণে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

গোপাল রায়ের চিকিৎসা ও নিরাপত্তার বিষয়টি জেলা প্রশাসন ও পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিঅইজি কার্যালয় তদারকি করছে। হাসপাতালে তাকে পুলিশ প্রহরায় রাখা হয়েছে বলে জানান চিকিৎসক মহসিনা।

দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ বাবুল আক্তার বলেন, সকালে একটি মোটরসাইকেলে তিন আরোহী এসে চতুর্থ করতোয়া সেতুর সন্নিকটে সন্তগৌরীয় মঠের পুরোহিতকে গলা কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়।এ সময় পুরোহিতকে বাঁচানোর জন্য এগিয়ে এলে তার সহকারী গোপাল চন্দ্রকেও দুর্বৃত্তরা গুলি করে। তাকে গুরুতর অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয় বলে তিনি জানান।

 

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :