দিনাজপুরের সর্বত্রই বইছে নির্বাচনী হাওয়া, মন জয়ে হিমশিম প্রার্থীরা

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:৩৪ PM, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৫

দিনাজপুর সংবাদদাতা : ভোটারদের দাবী-দাওয়া পাহাড়সম ॥ প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি,ভোটাদের দাবী-দাওয়া পাহাড়সম, নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে ভোটারদের জল্পনা-কল্পনা। সবমিলে এক অন্যরকম পরিবেশ বিরাজ করছে দিনাজপুর শহরে। দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, সন্ত্রাসী হামলায় মানুষ খুন, জঙ্গীদের তান্ডব কিংবা সংসারের অভাব অনটন সবকিছুকেই ভুলিয়ে দিয়েছে এই পৌর নির্বাচন। তাই ঘরে বসে কেউ নেই। সকাল থেকে রাত দুপুর পর্যন্ত সবাই যেন ঘরের বাইরে অবস্থান নিয়েছে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে, চায়ের স্টলে, রেষ্টুরেন্ট রেস্তোরায় কিংবা কোথাও জটলা করে আড্ডা দিচ্ছেন ভোটাররা। আর নির্বাচনকে ঘিরে নানা চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন। কোন সময় যুক্তি দিয়ে আর কোন সময় যুক্তিহীনভাবে মন্তব্য করছেন ভোটাররা কেউ কেউ। দায়িত্বশীল কর্মকর্তা, গুণীজন, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষক মাস্টার থেকে শুরু করে কুলি, মুটে, মজুর কিংবা রিক্সা ভ্যান চালক, ভিখেরী সবাই যে যার মত নির্বাচন নিয়ে আলোচনার ঝড় তুলেছেন। নিজ নিজ অবস্থান ও নিজেদের জ্ঞানের পরিধি থেকে এই সব আলোচনা করছেন। দল নয় বরং প্রার্থীকেই বেশী গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে এই পৌর নির্বাচনে। তাই ভোটারদের আশীর্বাদ নিতে ব্যস্ত প্রার্থীরা। আশীর্বাদ চেয়ে পোস্টার, লিফলেট, হ্যান্ডবিল কত কিছু প্রচার করা হচ্ছে প্রার্থীদের পক্ষ থেকে। হাত উচিয়ে, হাত নেড়ে, ডিজাইন করা হাই কলারের পাঞ্জাবী পড়া, নেতা বেশী চেহারার রঙ্গিন পোষ্টার দেওয়ালে দেওয়ালে আঠাঁ দিয়ে আটকিয়ে দিয়েছেন নেতাকর্মীরা। এই পর্যন্ত সবাই আশীর্বাদ ও দোয়া প্রার্থী। নিজেদের অবস্থান জানান দেওয়ার জন্য দিনাজপুর শহরের মোড়ে মোড়ে ঝুলানো হচ্ছে রঙ বেরঙের ডিজিটাল প্যানা ব্যানার। শহর সেজেছে যেন নতুন বরের সাজে। দ্বারে দ্বারে ঘুরছে কাউন্সিলর আর মেয়র প্রার্থীরা। দিনাজপুর পৌরবাসীর যেমন দাবী দাওয়ার শেষ নেই তেমনি প্রার্থীদের প্রতিশ্র“তির যেন শেষ নেই। কেউ চায় পরিস্কার ড্রেন, কেউ চায় মশার কামড় থেকে বাঁচতে, কেউ চায় অন্ধকার গলিতে বাতি আর কেউ চায় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাস্তা যা হবে যানজটমুক্ত। সব দাবী একই প্রতিশ্রুতি- আমি নির্বাচিত হলে সব সমস্যার সমাধান করে দিব। আমরা ভোটাররা সবাই চতুর। যে প্রার্থী দল বল নিয়ে আশীর্বাদ ও দোওয়া চাইতে ভোটারদের নিকট আসেন ভোটারদের একটিই কথা- “আমরা তো আগে থেকেই আপনার সাথে আছি কিছু চিন্তা করবেন না আপনি তো এবার বিজয়ী হবেনই”। অন্যদিকে যাকে গত ৫ বছরেও এলাকায় দেখা যায়নি বা যার কোন জনসেবাই স্বাক্ষর নেই তিনি দ্বারে এসে কুশল বিনিময় করছেন। বুকে বুক মিলিয়ে হাসি মুখে সালাম-আদাব কিংবা নমস্কার দিচ্ছেন বারে বারে। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে দিনাজপুরের পরিবেশ ততই দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে।

উল্লেখ্য যে, চিরাচরিত নিয়ম অনুযায়ী পূর্বের নির্বাচিত প্রার্থীরা বার বার যে প্রতিশ্রুতি দেন ভোটারদের তা কোন ভাবেই পালন করতে দেখা যায়নি। এমনও প্রার্থী আছেন যিনি নির্বাচিত হওয়ার পর ৫ বছরে কোন ভোটারদের সঙ্গে সাক্ষাত করেন না।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :