ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের ২টি লিফটই অকেজো; ভোগান্তিতে রোগী ও স্বজনরা !

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:১১ PM, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

নিজস্ব প্রতিনিধি : দেশের উত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁও। এ জেলা সহ পার্শ্ববর্তী পঞ্চগড় ও দিনাজপুরের বীরগঞ্জ সহ কয়েকটি জেলার মানুষ চিকিৎসা সেবার ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের ওপর নির্ভরশীল।

গত বছর এ হাসপাতালটি ৫০ শয্যা থেকে ২শ ৫০ শয্যায় উন্নিত হলে এলাকার মানুষ উন্নত চিকিৎসা সেবা পাওয়ার জন্যে অনেকটাই আশাবাদী হয়ে ওঠে। চলছিলো ঠিক সে ভাবেই। কিন্তু গত বেশ কিছুদিন ধরেই হাসপাতালের ওঠানামার জন্যে ব্যবহৃত লিফ্ট দুটিই অকেজো হয়ে পড়ে রয়েছে। এ অবস্থায় ছয় তলা বিশিষ্ট ভবনটির ৪র্থ, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলাতেই সার্জারি এবং মেডিসিন বিভাগ থাকায় প্রতিদিন অনেক কষ্ট করেই উঠানামা করছেন শতশত রোগী । প্রতিনিয়তই ভোগান্তিতে পড়েছেন সার্জারি বিভাগের রোগী ও তাদের স্বজনরা।

শনিবার হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, মর্জিনা আক্তার নামের এক পা ভাঙ্গা মধ্য বয়সী এক মহিলা রোগীকে তার স্বজনরা কোলে করে সার্জারী বিভাগে তুলছেন। ওঠা নামার ক্ষেত্রে সাহায্যের জন্য স্বজন না থাকায় হাসপাতালের বারান্দায় কাতরাচ্ছেন অনেক রোগী। পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কটি অতিমাত্রায় ব্যস্ত একটি সড়ক হওয়ায় এখানে প্রায় প্রতিনিয়তই দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। দুর্ঘটনার আহত এসব রোগীদের সিড়ি বেয়ে উপরে তোলাটাও একটা কষ্টকর বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

এ পরিস্থিতি থেকে দ্রুত উত্তোরণের জন্য কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন রোগীর স্বজন ও ভুক্তভোগীরা।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) রাকিবুল আলম চয়ন জানান, টেকনিক্যাল কারনেই লিফ্ট দুটি বন্ধ রয়েছে। আমরা এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা টেকনিশিয়ান পাঠিয়ে যত দ্রুত সম্ভব লিফ্ট দুটি মেরামতের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আশ্বস্ত করেছে।

উল্লেখ্য, মাঝে মধ্যেই এ সমস্যা দেখা দেওয়ায় লিফট দুটি অধিকাংশ সময়ই বন্ধ থাকে। আর বিপাকে পড়ে রোগী ও তার স্বজনেরা।

বিডি

জনদুর্ভোগ

আপনার মতামত লিখুন :