ঠাকুরগাঁওয়ে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিয়মিত ব্যায়াম করছেন ‘ভোরের সাথী’ সংগঠনের সদস্যরা

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৩৭ PM, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

নিজস্ব প্রতিনিধি : ‘নিয়মিত ব্যায়াম,পরিমিত আহার’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে নিজে ব্যায়াম করার পাশাপাশি অন্যকেও উৎসাহ দিচ্ছেন ঠাকুরগাঁওয়ে ‘ভোরের সাথী’ নামক একটি সংগঠনের সদস্যরা। নিয়মিত ব্যায়ামে যুক্ত হচ্ছেন তারা, আর নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে রোগ বালাই থেকে অনেকটাই মুক্ত থাকা সম্ভব বলে মনে করছেন ওই সংগঠনের সদস্যরা।

ভোরের সূর্য উঠার আগেই একত্রিত হয়ে ঠাকুরগাঁও শহরের প্রাণ কেন্দ্রের পাশেই জেলা স্কুল বড়মাঠে শারীরিক কসরতে নেমে পড়ছেন ভোরের সাথী সংগঠনটির সদস্যরা। বয়সের ভেদাভেদ ভুলে ব্যায়াম করতে অনেকেই ছুটে আসছে দূর থেকেও। সংগঠনে বিভিন্ন পেশাজীবীরা নিয়মিত ব্যায়ামে যুক্ত হওয়ায় শৃঙ্খলার মাধ্যমে ফুটে উঠছে তাদের কলাকৌশলের দৃশ্যপট। এতে শারীরিক ফিটনেনের পাশাপাশি তারা মানসিকভাবেও সুস্থ থাকতে পারছেন। আর এর ফলে ডায়াবেটিকস, হার্ট ও হাঁপানি রোগীরা এখন অনেকটাই সুস্থ বোধ করছেন বলে মনে করছেন সংগঠন সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আমরা যদি ব্যায়াম করি সুস্থ থাকি তাহলে আমাদের যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সেটা বৃদ্ধি পাবে। ব্যায়ামের মধ্যে দিয়ে আমরা নিজেদের সুস্থ রাখি এবং পরিবেশকে সুস্থ রাখার জন্য আমরা শপথ গ্রহণ করি।

সংগঠনের এক সদস্য জানান, ৫ কিলো দূর থেকে এসে আমার খুবই ভালো লাগে। আমরা নিয়মিত এখানে আসি, একদিন না আসলে আমাদের খারাপ লাগে।

স্বাস্থ্য সুরক্ষার পাশাপাশি সংগঠনের লক্ষ্য, সদস্যদের নানা সমস্যা সমাধান এবং দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের সহায়তা করা।

আর নিয়মিত ব্যায়াম ও পরিমিত আহার, এ দুটো জিনিস মেনে চললেই সুস্থ থাকা সম্ভব বলে মনে করেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা।

ঠাকুরগাঁওয়ের ভোরের সাথী সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, এটার উদ্দেশ্য হলো শরীর সুস্থ রাখা এবং আমাদের মধ্যে যে সমস্যাগুলো আছে সে নিয়ে আমরা আলোচনা করি। যতটুকু পারি সমাধান করি। ডায়াবেটিস রোগী আছে, অনেক হার্টের রোগী আছে। এ ব্যায়াম করার ফলে আমাদের এ রোগগুলো দূর হয়ে গেছে ইনশাআল্লাহ।

তিনি জানান, সংগঠনটি গুটি কয়েক সদস্য নিয়ে ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা অর্ধশতাধিক।

বিডি

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :