ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানদের মারপিটে হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছেন মা

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:৫৮ PM, ৩০ অগাস্ট ২০২০

নিজস্ব প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে ছেলেদের বেধড়ক মারপিটে হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছেন এক অভাগি মা। অসুস্থ নানার জন্য সু-স্বাদু খাবার বাজার থেকে কিনে আনাকে কেন্দ্র করে নিজের মা-নানার সাথে অসভ্য আচরণ করে তারা এমনকি নিজের বয়স্ক নানাকে লাঞ্চিত করে নানার শয়ন ঘর ভেঙ্গে দেওয়া হয়। এসব দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে থানা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে অভিযোগ দেওয়ার জন্য বাড়ী থেকে বের হওয়ায় নিজ মা’কেই বেধড়ক মারধর করে দুই ছেলে ও ছেলের বউ।

এসময় এভাবে প্রকাশ্যে বাজারে নিজ মাকে কেন মারপিট করা হলো জানতে চাওয়ায় নিজের মামা মমিরুল ইসলামকেও বেধড়ক পিটিয়ে গুরতর জখম করে মোবাইল ও টাকা ছিনিয়ে নেয় ভাগিনারা।

ঘটনাটি গত (২৮ আগস্ট) শুক্রবার বিকেলে ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার ডায়াবেটিস মোড় এলাকায় ঘটেছে। মা এবং ছেলে দুজনেই বাণিয়া দিঘী নামক এলাকায় নানার বাড়ীতে বসবাস করেন।

পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আহত অবস্থায় মা ও মামাকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। বর্তমানে তারা সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

থানায় দেওয়া এজাহার ও প্রত্যক্ষদশী সুত্রে জানা যায়, বানিয়া দিঘী নামক এলাকায় নানাসহ মা মাজেদা বেগম(৪৫) দুই ছেলে মাজেদুল ইসলাম(৩৫), রশিদুল ইসলাম(৩২) ও ছোট ছেলের বউ আদুরী(২৬) মিলে বসবাস করতো। তাদের মধ্যে মাঝে মাঝেই ঝগড়াঝাটি লাগতো। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার সকালে তার মায়ের সাথে তার নানাকে কেন্দ্র করে দুই ছেলে ও ছেলের বউয়ের মাঝে কথাকাটি হয়। কথাকাটির এক পর্যায়ে তারা তার মা ও নানাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এর প্রতিবাদ করায় মায়ের সামনেই তার নানার শয়ন ঘর ভেঙ্গে দিয়ে তার নানাকে লাঞ্চিত করে।

এ নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে বিকেলে তার মা মাজেদা বেগম স্থানীয় থানায় ও জনপ্রতিনিধির কাছে বিচার চাইতে যাওয়ার প্রাক্কালে বাড়ীর পাশ্বের বাজার ডায়বেটিস মোড়ে তার মা’কে আটকিয়ে অর্তকিতভাবে বেধড়ক মারপিট করে রাস্তায় ফেলে দেয়। ইতিমধ্যে তাদের মামা মমিরুল ইসলাম গরু ব্যবসায়ী সে পথ দিয়েই যাওয়ার সময় তার বোনের এমন অবস্থা দেখে ভাগিনাদের কাছে এর কারণ জানতে চায়।এসময় তারা দল বেধে এবার তার মামাকেও বেধড়ক মারপিট দিয়ে পকেটে থাকা ১৭,৫০০ টাকা ও একটি মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

এ ঘটনায় ঐ দিনই দুই ছেলে ও বউমাকে বিবাদী করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে নির্যাতিত মা মাজেদা বেগম। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নিজের গর্ভের ছেলেরা যখন এভাবে মার দেয় সেখানে বেঁচে থেকে কি লাভ। তারা যখন ছোট তখনই তারা বাবা আমাদের ছেড়ে অন্যত্রে সংসার পাতেন। আমি ও আমার বাবা ভাই মিলে এদের মানুষ করি অথচ তারাই আজ আমাদের মারধর করলো। তিনি তার ছেলেদের এমন কর্মকান্ডের জন্য দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চান।

এদিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন আঘাত দেখে মনে হচ্ছে ভারী কোন কিছু দিয়ে মারপিট করা হয়েছে।

অভিযুক্ত দুই ভাইয়ের ছোট ভাই রশিদুল গতকাল শনিবার বিকেলে মুঠোফোনে মাকে মারপিট দেওয়ার কথা শিকার করে জানান, আমার মা ও মামা আমাদের সকালে মার দিয়েছিল। তাই রাগের বশতে এমনটি ঘটেছে।

অফিসার ইনর্চাজ এস এম জাহিদ ইকবাল মুঠোফোনে বলেন, মা-ছেলের মারামারির ঘটনায় ডায়বেটিস মোড়ে পুলিশ পাঠাইছিলাম, মা ছেলের ঘটনাতো ছেলেদের ধরে ঢুকাবো, মা তখন দৌড়ায় আসবে বুঝেন নাই। পারিবারিক ঘটনাতো তারপরেও দেখি তারা বুঝি অভিযোগ দিয়েছে। এসময় ওনার এক এস আইয়ের নাম ধরে তাকে বলেন বিষয়টা দেখোতো।

বিডি

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :