ঠাকুরগাঁওয়ে শিশুদের প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধে প্রচারাভিযান শুরু

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:১৯ PM, ২৯ মার্চ ২০১৭

ঠাকুরগাঁওয়ের খবর :  “আমিই পারি শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধ করতে, বাড়ি-শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং কর্মক্ষেত্রে ” শ্লোগানকে বাস্তবায়ন করতে ঠাকুরগাঁওয়ে শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধে এক প্রচারাভিযানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার(২৮ মার্চ) সকাল এগারোটায়  ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ওআরসি ভবনে এ প্রচারাভিযানের উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আবু রাফা মো: আরিফ।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মো: জবেদ আলী।
শিশুর প্রতি এই সহিংসতার বিষয়টি তুলে ধরতে যৌথভাবে এ প্রচারাভিযান শুরু করে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, ঠাকুরগাঁও শাখা এবং  ঠাকুরগাঁও এডিপি- ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ। এই প্রচারাভিযানের লক্ষ্য হলো শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধে বাংলাদেশ সরকারের পরিচালিত উদ্যোগগুলোকে সহায়তা করা, বিশেষ করে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ১৬.২ (শিশুর প্রতি অনাচার, দুর্ব্যবহার, পাচার, এবং সব ধরণের সহিংসতা ও নিপীড়ন বন্ধ করা) প্রতিষ্ঠিত করা।
WV_28317.1
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সরকার শিশু-সুরক্ষায় বিভিন্ন উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে। যার সফলতা বেশ লক্ষ্যণীয়। কিন্তু, তা সত্ত্বেও শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতার হার কমেনি বরং নিত্য নতুন পন্থা ও মাধ্যম ব্যবহার করে শিশুদের উপর নির্যাতন করা হচ্ছে। ইউনিসেফ পরিচালিত জরিপের তথ্যমতে, ১-১৪ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে ৮২% শিশুই বিভিন্ন নির্যাতনের শিকার।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, তারিকুল ইসলাম, উপ পরিচালক, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর, ঠাকুরগাঁও, আবু ছিদ্দিক, জেলা প্রথামিক শিক্ষা অফিসার, আখতারুজ্জামান সাবু, প্রধান শিক্ষক, ঠাকুরগাঁও সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোর্শেদ আলী খান, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মনোয়ারা চৌধুরী, আবু তোরাব মানিক, সভাপতি, ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাব, বিশিষ্ঠ্য সমাজ সেবক আয়েশা সিদ্দিকা তুলি ও অ্যাড. জাহিদ ইকবাল, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন লিওবার্ট চিসিম,ঠাকুরগাঁও এডিপি ম্যানেজার, ওয়ার্ ভিশন বাংলাদেশ।
প্রসঙ্গত, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এই প্রচারাভিযানের লক্ষ্য হলো এসডিজি লক্ষ্যমাত্রার সাথে সঙ্গতি রেখে আগামী ২০২১ সালের মধ্যে শিশুর বাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং কর্মক্ষেত্রে শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধে অবদান রেখে বাংলাদেশের ৫০ লক্ষ শিশুর জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনা। এই উদ্দেশ্যে ওয়ার্ল্ড ভিশন বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে সহিংসতা বন্ধে কাজ করবে, যা সামাজিক রীতিনীতি, আচার আচরণ এবং স্বভাব পরিবর্তনের মাধ্যমে সর্বস্তরে  শিশু-সুরক্ষার সিস্টেমগুলিকে জোরদার করবে। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ দেশের ৩৪টি জেলার ৮০০টি শিশু ফোরামের মাধ্যমে প্রায় ২ লক্ষ শিশু প্রতিনিধির সাথে এই লক্ষ্য পূরণে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং শিশু অধিকার এ্যাডভোকেসি জোট সক্রিয়ভাবে মানবাধিকার কমিশনের সঙ্গে শিশুর প্রতি সব ধরণের সহিংসতা বন্ধে কাজ করবে।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :