রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ০৭:৪৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে নতুন করে দুইজন করোনায় আক্রান্ত; আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ১১১ এই পরিস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা নয় -শিক্ষামন্ত্রী এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় গলায় ফাঁস দিলো শিক্ষার্থী প্রতিষ্ঠান চালালে রাখতে হবে থার্মোমিটার-জীবানুণাশক ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উদযাপনে টাস্কফোর্স কমিটির সভা ফুলবাড়ীতে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের খাদ্য সহায়তা দিলেন এমপি ফুলবাড়ীতে লেবু জাতীয় ফসলের সম্প্রসারণ কল্পে দিন ব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ আটোয়ারীতে কৃষকের মাঝে কোম্বাইন্ড হারভেষ্টার মেশিন প্রদান গণপরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রা শুরু করলো লালমনি এক্সপ্রেস

ঠাকুরগাঁওয়ের মার্কেটগুলোতে উপচে পড়া ভিড়; স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ব্যাপক হারে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৬ মে, ২০২০
  • ১০০ পঠিত

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ঠাকুরগাঁওয়ের মার্কেটগুলোতে বেড়েই চলছে জনগনের উপচে ভড়া ভিড়। এতে মানা হচ্ছেনা কোন প্রকার স্বাস্থ্যবিধি। ফলে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে ব্যাপক হারে সংক্রমণের আশঙ্কা করছে জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ।

যেখানে বার বার করে বলা হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটার কথা, কিন্তু কে শোনে কার কথা।

শুক্রবার (১৫ মে) শহরের বিভিন্ন বিপনী বিতানসহ শপিং মার্কেটগুলোতে গিয়ে এমনি চিত্রটি দেখা যায়।

করোনাকালীন সতর্কতা এবং সামাজিক দূরত্ব রক্ষার শর্তে সরকারের ঘোষণার পর গত রবিবার ১০মে থেকেই ঠাকুরগাঁওয়ের মার্কেটগুলো চালু রেখেছে ব্যবসায়ীরা। এদিকে ঈদ ঘনিয়ে আসায় দিন যতো যাচ্ছে মাকের্টগুলোতে বাড়ছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়, যা দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে সচেতন মহল।

প্রত্যহ সকাল থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকছে শহরের বিভিন্ন মার্কেটের দোকনগুলো। শুধু জেলা শহর নয় বিভিন্ন উপজেলা থেকেও ঈদ মার্কেট করতে দলে দলে আসছেন ক্রেতারা। মার্কেটগুলোতে জীবানুনাশক স্প্রে করা হলেও ভ্রুক্ষেপ নেই কোন প্রকার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার প্রতি।

এদিকে জেলা প্রশাসন ও চেম্বার অফ কমার্সের পক্ষ থেকে সকল প্রকার নির্দেশনা ও মার্কেট মনিটরিং করা হলেও তারা চলে যাবার পরেই পাল্টে যাচ্ছে মার্কেটের চিত্র। কেউ যেন মানছেনা কিছুই। যার ফলে বেড়েই চলছে জেলায় করোনাকালিন স্বাস্থ্য ঝুঁকি।

চৌরাস্তায় দিয়ে বাসার দিকে যাচ্ছিলেন শহরের আশ্রমপাড়া এলাকার বাসিন্দা ফরিদুল ইসলাম। তিনি জানান, কোন কাজ ছাড়া কেউ যেন বাসা থেকে না বেড় হয় সেটার জন্য সরকার বার বার বলছে। কিন্তু আজ চৌরাস্তার দিকে আসে বুঝা গেলো কি অবস্থা। মানুষ এভাবে স্বেচ্ছায় নিজেদের মৃত্যুকে ডেকে নিয়ে আসছে।

ঈদ মার্কেট করতে আসা ক্রেতা জেসমিন জানান, বাসায় ছোট মেয়ে কাপড়ের জন্য বাহানা ধরেছে। কিন্তু মার্কেটের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে এখানে কাপড়ের বাজার নয় এটা যেন করোনার বাজার। এভাবে গা ঘেষে যদি মার্কেটগুলো চলে তাহলে তো মারাত্মক বিপদ। প্রশাসনের উচিত কঠোর ব্যবস্থা নেয়া। তা না হলে সামনে আমাদের এই শান্তির জেলা করোনার আবাসস্থলে পরিণত হবে।

বিক্রেতারা জানান, ঈদের কারনে ক্রেতার সংখ্যা একটু বেড়ে গেছে। দোকানের সামনে সার্কেল করে দেয়া হচ্ছে। যাতে করে দূরত্ব বজায় রাখা যায়। এছাড়াও দোকান গুলোতে জীবনুনাশক স্প্রে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু সাধারণ মানুষ এখন এসব মানতে চাচ্ছেনা। এরপরেও দূরত্বটি বজায় রাখার জন্য ক্রেতাদের বার বরা বলা হচ্ছে।

ঠাকুরগাঁও চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি হাবিবুল ইসলাম বাবলু বলেন, বৃহস্পতিবার আমরা মার্কেটের ১০টি দোকান বন্ধ করে দিয়েছিলাম। আজ সকালেও আমরা মার্কেটগুলোতে ম্যাজিস্ট্রেটসহ আমরা পরিদর্শন করেছি। সেই সাথে সামিাজিক দূরত্বসহ সকল নিময় মেনে চলার ব্যাপারে সকলকে অবগত করেছি। এরপরেও যদি মাকেটে উপচে পড়া এই ভিড়টি নিয়ন্ত্রণ করা না সম্ভব না হয় তাহলে মার্কেটগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।

ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন ডা: মাহফুজুর রহমান সরকার বলেন, আমাদের সকলের উচিৎ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করা। যদি এই সময়ে সামাজিক দূরত্ব না মেনে চলা হয় তাহলে জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ইতিমধ্যে আমারা কয়েকটি দোকানে বন্ধ করে দিয়েছি। এছাড়াও আমাদের ম্যাজিস্ট্রেট প্রতিনিয়ত মার্কেটগুলোতে মনিটরিং করে যাচ্ছে। এরপরও যদি পরিস্থিতি না বদলায় তবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর :

আমাদের সাথে থাকুন

Facebook Pagelike Widget

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৪৭,১৫৩
সুস্থ
৯,৭৮১
মৃত্যু
৬৫০

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬,১৯৬,৪১৬
সুস্থ
২,৭৬০,৭২২
মৃত্যু
৩৭১,৫৯৫

Archive Calendar

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ঠাকুরগাঁওয়ের খবর

কারিগরি সহযোগিতায়: অন্তর রায় প্রিন্স
You cannot copy content of this page