জাতির পিতার কন্যা আমি,দূর্নীতি করে ভাগ্য ফেরাতে আসিনি -শেখ হাসিনা

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:০০ AM, ০১ মে ২০১৬
Bangladesh Prime Minister Sheikh Hasina

ঠাকুরগাঁওয়ের খবর ডেস্ক: জাতির পিতার কন্যা আমি। দুর্নীতি করে ভাগ্য ফেরাতে আসিনি। পদ্মা সেতু নির্মাণে দুর্নীতি হয়েছে বলে যারা আমাদের অপবাদ দিতে চেয়েছিল, আমি চ্যালেঞ্জ করেছিলাম। কোনো দুর্নীতি হয়নি, আমরা তা প্রমাণও করেছি। আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করছি। আর এ সেতু নির্মাণের মধ্য দিয়ে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ আরো এক ধাপ এগিয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার বেলা ১১টায় সদর উপজেলার ঘোনাপাড়ায় শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের উদ্বোধন উপলক্ষে হাসপাতাল প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ক্ষমতায় এসে আমরা সুষম উন্নয়নের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। দেশব্যাপী আমরা উন্নয়ন করতে চাই। আমরা জনগণের জন্য কাজ করি। দীর্ঘদিন আমরা গোপালগঞ্জবাসী বৈষম্যের শিকার ছিলাম। বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে গোপালগঞ্জের জন্য বাজেটে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হতো-কিন্তু তা কেটে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে উন্নয়ন চায়না। তারা মানুষ পোড়াতে পারে এবং হত্যা করতে পারে। এখন তারা দেখে দেখে গুপ্তহত্যা করছে। মন্দির ও প্যাগোডায় বোমা মারছে। মসজিদে নামাজ পড়ার সময় মানুষ হত্যা করছে।

তিনি আরো বলেন, আমি আমার বাবা, মা, ভাইদের হারিয়েছি। বঙ্গবন্ধু দেশের মানুষকে সবচেয়ে ভালবাসতেন। তিনি নিজের কথা কখনও ভাবতেন না। তার স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে একটি সমৃদ্ধশালী দেশ হবে। কিন্তু সে স্বপ্ন পূরণেরর আগেই ঘাতকরা সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জাতির অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করে। দীর্ঘ ২১ বছর ক্ষমতার বাইরে রাখা হয় আওয়ামী লীগকে।
সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি, স্বাস্থ্য মন্ত্রী মো. নাসিম, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক স্বাস্থ্য ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী ও স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপনসহ প্রমূখ।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী এসময় গোপালগঞ্জে মধুমতি নদীর উপর চাপাইল ব্রিজ, শিশু একাডেমি কমপ্লেক্স, জাতীয় মহিলা সংস্থার ভবন ও টুঙ্গিপাড়ায় প্রধান ডাকঘরের উদ্বোধন করেন। এছাড়া তিনি গোপালগঞ্জে শেখ লুৎফর রহমান ডেন্টাল কলেজ, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, ১০ কিলোওয়াট এফএম রেডিও স্টেশন, টুঙ্গিপাড়া ও মুকসুদপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ও কাশিয়ানী-গোপালগঞ্জ (গোবরা) নতুন রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন।

 

নির্বাচিত লেখা সমূহ

আপনার মতামত লিখুন :