জঙ্গীদের সহায়তা করার অভিযোগে লালমনিরহাটে পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজ

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৫৪ AM, ১৮ জুন ২০১৬

লালমনিরহাট সংবাদদাতা : জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদী চক্র গ্রেফতার অভিযানের তথ্য ফাঁস করে  দেওয়ার অভিযোগে লালমনিরহাট সদর থানায় এসআই জহুরুল ইসলামকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। এই ঘটনায় জঙ্গী, মাদক ব্যবসা ও হুন্ডি ব্যবসায় পুলিশের সম্পৃক্ততা আবারো প্রমান হয়ে গেল। তাই পুলিশের মধ্যে জঙ্গী সম্পৃক্ততায় বিভাগীয় তদন্তের দাবি উঠেছে।
সারা দেশে জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদ চক্রদের ধরতে পুলিশ, র‌্যাব ও আইনশৃঙখলা বাহিনীর  বিশেষ অভিযান চলছে।  অভিযানে জেলা সদরের মোগলহাটে জঙ্গী, ফতোয়াবাজ, চোরাকারবারী, মাদক ব্যবসায়ী, টাউট বাটপার,  গ্রেফতার করা তথ্য এস আই মোঃ জহুরুল ইসলাম ফাঁস করে দিয়েছে। ফলে এই সীমান্তের মাফিয়া গং নিজেদের গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপনে চলে যায়।
মোগলহাট ইউনিয়নে গ্রেফতার অভিযান ভন্ডল হয়ে যাওয়ার ঘটনায় পুলিশের বিশেষ টিম ( পিবিআই) কাজ করে। তাঁরা এসআই মোঃ জহুরুল ইসলাম কে জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদী চক্রের সদস্য ও মাফিয়া ক্যাডারদের সহায়তা করার প্রমান পায়, বিষয়টি পুলিশ সুপার কে অবগত করা হয়। পুলিশ সুপার তাঁকে ৩দিন আগে সদর থানা হতে পুলিশ লাইন ক্লোজ করে রাখে। সাত দিনে জঙ্গী বিরোধী অভিযানে তাঁকে নিষ্ক্রীয় করে রাখা হয়।
লালমনিরহাটে পুলিশের বিরুদ্ধে জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদী চক্রকে সহায়তার অভিযোগ অনেক পুরনো। খোদ সরকারের সাবেক প্রতিমন্ত্রী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ মোতাহার হোসেন এমপি পুুলিশের আইজিবিকে বিষয়টি অবগত করেন। কিন্তু রহস্যজনক কারনে লালমনিরহাটে জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদী চক্র ধরা ছোঁয়ার বাহিরে থেকেছে সব সময়।
লালমনিরহাটের  পুলিশকে জঙ্গী ও উগ্রমৌলবাদ মুক্ত করতে জঙ্গী সম্পৃক্ততার অভিযোগের বিষয়টি বিভাগীয় উচ্চ ক্ষমতা সম্পূর্ন তদন্ত টিম দিয়ে তদন্ত করে দায়ীদের অপসারনের দাবি খোদ পুলিশের ভিতরেও উঠেছে।
”কে এই এসআই মোঃ জহুরুল ইসলাম”
এসআই জহুরুল ইসলাম বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের আমলে ৯১ পুলিশের কনষ্টেবল পদে চাকুরীতে যোগদান করে। কুড়িগ্রাম জেলার ওলিপুরে তাঁর গ্রামের বাড়ি। কুখ্যাত রাজাকার পনির উদ্দিনের পরিবারের সাথে তাঁর পরিবারের সখ্যতা ছিল। ছাত্রাবস্থায় শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল। রাজশাহীতে চাকুরী করার সময় ছাত্রলীগ ও প্রগতিশীল রাজনৈতিক নেতা কর্মীদের উপর নির্যাতন করে জামায়াত বিএনপির নেতাদের নজর কাড়ে। পুলিশ কনষ্টেবল হতে বিভাগীয় পদোন্নতি নিয়ে বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের আমলে অর্থের বিনিময়ে পুলিশের এসআই হয়ে যায়। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে রাজশাহী হতে রংপুর রেঞ্চে বদলি হয়ে আসে। যেখানে চাকুরী করেছে। সেখানে জামায়াত শিবির কে সহায়তা করেছে। জামায়াতপন্থি পুলিশ হিসেবে তাঁর কুখ্যাতি রয়েছে। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় চাকুরী করার সময় জামায়াত শিবিরের সাথে তার ছিল সখ্যতা। সেখানে জামায়াত শিবির এই পুলিশ কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে অগ্রীম পুলিশের অভিযানের তথ্য পেয়ে যেত। লালমনিরহাটেও একই ভাবে সিন্ডিকেট করে জামায়াত শিবিরকে সহায়তা করেছে। শেষ পর্যন্ত তথ্যটি ফাঁস হয়ে যায়। দাম্ভিক এই পুলিশ কর্মকর্তা স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের কাছে মন্তব্য করেছে, তার কিছু হবে না। অর্থের বিনিময়ে ইন্সেপেক্টওর পদে পদোন্নতি নিয়ে বদলী হয়ে অন্যত্র চলে যাবে। তার ক্ষমতা হাত অনেক ওপরে।

জেলার খবর

আপনার মতামত লিখুন :