ঘুমিয়ে ছিলেন গেটম্যান; জীবন প্রদ্বীপ নিভে গেল ১২ জনের !

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:২০ PM, ১৯ ডিসেম্বর ২০২০

জয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাট সদরের পুরানাপৈলে রেলক্রসিংয়ের গেট খোলা থাকায় বাস ও ট্রেনের সংঘর্ষের মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে।এসময় ঘুমিয়ে ছিলেন গেটম্যান।

এ তথ্য নিশ্চত করেছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. সালাম কবির।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মো. শরীফুল ইসলাম ও ‍পুলিশ সুপার সালাম কবির।

এসময় সালাম কবির সাংবাদিকদের বলেন, রেলক্রসিং খোলা ছিল। গেটম্যান ঘুমিয়ে ছিলেন।রেলক্রসিং খোলা দেখে বাসচালক রেললাইন পার হওয়ার চেষ্টা করলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় ১২ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা খোরশেদ আলম সৈকত বলেন, রেলক্রসিং বন্ধ থাকলে এ দুর্ঘটনা ঘটতো না। গেটম্যানের ভুলের কারণেই এতগুলো প্রাণ ঝড়ে গেল।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়,বাঁধন পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস জয়পুরহাট থেকে পাঁচবিবি যাচ্ছিল।নিহত ১২ জন বাসের যাত্রী ছিলেন। পার্বতীপুর থেকে রাজশাহীগামী ৩২ নম্বর উত্তরা এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে বাসটির সংঘর্ষ হয়।

বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ১২ জনের মধ্যে ৬ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন, জেলার পাঁচবিবির আটুল গ্রামের আলতাব হোসেনের দুই ছেলে বাবু (৩০), রাব্বি (১৮), সদরের হিসমী দক্ষিনপাড়ার মৃত মানিক হোসেনের ছেলে রমজান (৩৬), কুঠিবাড়ীর শরিফুল ইসলামের ছেলে আঃ লতিফ (২৯), আক্কেলপুরের চকবিলা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে সাজু (২৬), নওগাঁর রানীগগরের বিজয়কান্ডির গ্রামের গোড়া মিয়ার ছেলে বাবুল (৫৫)।

বিডি

আপনার মতামত লিখুন :