গাইবান্ধায় স্ত্রীকে হত্যা করে গলায় ফাঁস দিল স্বামী !

Bidhan DasBidhan Das
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:০৯ PM, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার মুক্তিনগর ইউনিয়নের খামার ধনারুহা গ্রামে গত রোববার রাতে স্ত্রী রুমি বেগম (২৮)কে শ্বাসরোধে হত্যার পর স্বামী জামিরুল ইসলাম (৩২) ঘরের ধর্নার সাথে স্ত্রীর ওড়না গলায় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

জামিরুল ইসলাম ওই গ্রামের নান্দু মিয়ার ছেলে ও পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রী। প্রায় ১১ বছর আগে জামিরুল ইসলাম ও রুমি বেগমের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ইমন (৯) ও ইয়াছিন (২) নামে দু’সন্তান রয়েছে।

বাড়ির লোকজন জানায়, জামিরুল ও তার স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কোন সমস্যা ছিল না। তাদের সুখের সংসার ছিল। রোববার সকালে জামিরুল ইসলাম স্ত্রী ও ছেলেমেয়েসহ পার্শ্ববর্তী সদর উপজেলার বোয়ালী গ্রামে তার ভাগ্নির বিয়েতে অংশ নেয়। পরে রাত ৯টার দিকে তারা বাড়িতে আসেন। রাতে খাবার খেয়ে স্বাভাবিকভাবে তারা ঘরে ঘুমাতে যান। পরদিন গতকাল সোমবার সকালে ওই ঘর থেকে তাদের ছেলের কান্না শুনে বাড়ির লোকজন দরজা ধাক্কাধাক্কি করলে জামিরুলের বড় ছেলে ইমন কাঁদতে কাঁদতে দরজা খুলে দেয়।

এসময় বাড়ির লোকজন ঘরে ঢুকে জামিরুলকে ঝুলন্ত অবস্থায় এবং রুমি বেগমকে মেঝেতে গলায় ওড়না পেঁচানো মৃত অবস্থায় দেখতে পায়।

খবর পেয়ে দুপুরে সাঘাটা থানা থেকে পুলিশ এসে দু’জনের লাশ উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে পোস্ট মর্টেমের জন্য মর্গে পাঠায়।

প্রতিবেশীদের ধারণা মানষিক বিপর্যয়ে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর জামিরুল গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

সাঘাটা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল হোসেন বলেন, তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। শ্বাসরোধে রুমি বেগমের মৃত্যু হয় বলে মনে হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে বলা যাবে কেন এ ঘটনা ঘটেছে।

বিডি

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :