একনেক সভায় ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ঠাকুরগাঁও খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্পনগর প্রকল্প অনুমোদন

আপেল মাহমুদ, স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)‘র বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে ২২ জুন সর্বশেষ একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিলো।

দেশে প্রথমবারের মতো কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী করতে যাচ্ছে সরকার। ঠাকুরগাঁও সদরে ৫০ একর জায়গায় এ শিল্পনগরী স্থাপন করবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ শিল্পনগরী করতে যাচ্ছে বিসিক যা একনেক সভায় অনুমোদন পেয়েছে।

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) এক গবেষণায় বলা হয়েছে, যথাযথ প্রক্রিয়াজাত ও সংরক্ষণ সুবিধার অভাবে বাংলাদেশে প্রতিবছর ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ ফল ও সবজি নষ্ট হয়ে যায়। ফলে কৃষক তাঁর পণ্যের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন না। আবার পণ্যের মূল্যেও এর নিতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এ অবস্থায় কৃষিপণ্য নষ্ট হওয়া থেকে বাঁচাতে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বিসিক সূত্রে জানাযায়, কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতেই বিসিকের পক্ষ থেকে উত্তরাঞ্চলে একটি খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বিসিকের তথ্য অনুযায়ী, দেশের উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলার মানুষের প্রধান পেশা কৃষি। দেশের খাদ্য চাহিদার ৫০ শতাংশ এবং কৃষিভিত্তিক শিল্পের কাঁচামালের ৭০ ভাগের জোগান আসে এ অঞ্চল থেকে। এসকল জেলায় প্রচুর পরিমাণে আলু, টমেটো, পেঁয়াজ, রসুন, আম, কলা, লিচু, কাঁঠাল, শাকসবজি, ফলমূল ও ধান উৎপন্ন হয়। কিন্তু খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী না থাকায় একদিকে কৃষক পণ্যের যথাযথ দাম পাচ্ছে না, অন্যদিকে বিপুল পরিমাণ পণ্য নষ্ট হয়ে যায়। এতে করে ভোক্তা পর্যায়ে পণ্যের দামের ওপরও নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

দেশের উত্তরাঞ্চলে প্রচুর আলু উৎপাদন হয়। ঠাকুরগাঁওয়ে প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী হলে সেখানে আলু দিয়ে চিপসসহ নানা ধরনের খাবার তৈরির কারখানা করা যাবে। একইভাবে টমেটো প্রক্রিয়াজাতের মাধ্যমে সসসহ নানা রকমের খাবার তৈরির কারখানা গড়ে উঠবে। আম, লিচু প্রক্রিয়াজাতের মাধ্যমে জুস তৈরির কারখানা করার সম্ভাবনা আছে। এ ছাড়া শীতকালীন সবজি ফুলকপি, শিমসহ অন্যান্য পণ্যের প্রক্রিয়াজাতকরণের ব্যবস্থাও থাকবে। এসব কর্মযজ্ঞ বাস্তবায়নে স্থানীয় কৃষকের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে বিসিক।

আপেল/বিডি

Leave a Reply