ঈদকে সামনে ঠাকুরগাঁওয়ে মোটরসাইকেল চুরি বৃদ্ধি

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৩২ PM, ১৩ জুন ২০১৬

ঠাকুরগাঁওয়ের খবর : ঈদকে সামনে রেখে ঠাকুরগাঁওয়ে অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে মোটরসাইকেল চুরি। আর এ মটরসাইকেল চুরিতে কাজ করছে একটি প্রভাবশালী সংঘবদ্ধচক্র এমটাই দাবী মোটরসাইকেল খোয়ানো মালিকদের।
ঠাকুরগাঁও জজকোর্ট চত্বর একটি ব্যস্ততম এলাকা।সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সারাক্ষণ এখানে বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা ও সদর উপজেলার লোকদের ভিড়ে জমজমাট থাকে এলাকাটি।অথচ এই ব্যস্ততম এলাকা থেকে সকলের অগোচরে দিনে-দুপুরেই মোটরসাইকেল চুরি হওয়ায় বিষয়টি সকলকে ভাবিয়ে তুলেছে।
জানা যায়, সদর উপজেলার নারগুন ইউনিয়নের বাসিন্দা সামসুদ্দিন আজ সোমবার(১৩জুন) নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে মামলার হাজিরা দিতে আসেন তাঁর ব্যবহৃত সিডি ডিলাক্স ১০০ সিসি মোটরসাইকেলে চেপে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আদালত চত্বরের বটগাছ তলায় বাইকটি রেখে তিনি উকিলের কাছে যান দেখা করতে। মাত্র ৫ মিনিটের ব্যবধানে উক্ত স্থানে এসে দেখেন তার মোটরসাইকেলটি উধাও হয়ে গেছে।সাথে সাথে চারদিকে দৌড়ঝাপ করেও তিনি তার মোটরসাইকেল পাননি।অগত্যা উপায়ান্তর না পেয়ে থানায় গিয়ে একটি জিডি করেন।
অপরদিকে শহরের মুন্সিপাড়া এলাকায় আশ্রমপাড়ার বাসিন্দা নাহার মৎস্য খামারের পরিচালক মোঃ আলী হোসেন রতন (মৌসুমী ফল ব্যবসায়ী) গত শুক্রবার (১০জুন) রাত আনুমানিক ৯টার দিকে মদ ভাটির সামনে এক আম বাগানে যান আমের বাগান ক্রয় সংক্রান্ত বিষয়ে আলাপ করতে। বিশিষ্ট আম ব্যবসায়ী শহরের খানকাহ এলাকার বাসিন্দা মোঃ রফিকুলের পরামর্শে তিনি বাগানের বাইরে তার ব্যবহৃত বাজাজ ডিসকভার ১২৫ সিসি মোটরসাইকেলটি রাখেন। এরপর বাগানের ভিতরে প্রবেশ করা মাত্র তিনি মোটরসাইকেল স্টার্ট হওয়ার শব্দ শুনে এগিয়ে গিয়ে দেখেন তার বাইকটি নিয়ে পালাচ্ছে চোর। এসময় চিৎকার চেচাঁমেচি করেও গাড়ীটি আটকাতে পারেনি কেউ।ভুক্তভোগী রতন বিষয়টি সাথে সাথে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় অবহিত করলে  থানা থেকে তাকে শহরের সিসি ক্যামেরাগুলো থেকে ঐ সময়ের ভিডিও ফুটেজ দেখে খোয়া যাওয়া গাড়ীটি উদ্ধারের আশ্বাস দেন। কিন্তু ৪ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কোন সুরাহা পাওয়া যায়নি।
এদিকে ঘন ঘন মোটরসাইকেল চুরি হওয়ায় আতঙ্কে আছেন ঠাকুরগাঁওয়ে মোটরসাইকেল মালিকেরা।

অপরাধ

আপনার মতামত লিখুন :