অতিরিক্ত মালামাল বোঝাই ট্রাক চলাচলে ধসে যেতে পারে স্বর্ণামতি বিকল্প বেইলি সেতু!

tkeditortkeditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:১৩ AM, ০৩ জুন ২০১৬

আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকে : লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার স্বর্ণামতি সেতু নিমার্ণের জন্য পার্শ্বে স্টীলের দু’টি বিকল্প বেইলী সেতু নিমার্ণ করা হয়। অন্যদিকে সেতুর নিমার্ণ কাজ চলছে। স্বর্ণামতি নদীর উপর নির্মিত বিকল্প দু’টি বেইলী সেতুর ধারণ ক্ষমতা ১৫ মেট্রিক টন। সেক্ষেত্রে বর্তমানে বিকল্প বেইলী সেতু দু’টির উপর দিয়ে সর্বনিম্ন ২০ থেকে ৪০ মেট্রিকটন মালামাল বোঝাই ট্রাক অবাধে চলাচল করছে। ফলে যে কোন মুহূর্তে বেইলী সেতু দু’টি নদী গর্ভে ধসে যেতে পারে। ইতোমধ্যে সেতুর এক পাশ দেবে গেছে। ৩০ মে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটি সভায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জানান, জরুরী ভিত্তিতে বেলী ব্রীজ দু’টি পুনঃ মেরামত প্রয়োজন। ইতোমধ্যে মটর ও ট্রাক মালিক সমিতিকে এই বেলী ব্রীজের উপর দিয়ে ভারি ট্রাক চলাচল বন্ধ রাখতে পত্র দেয়া হয়েছে। আজ থেকে বেইলী ব্রীজ পুনঃ মেরামত কাজ শুরু হয়েছে। সে কারণে ট্রাক সহ অন্যান্য যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হবে। তিনি আরো জানান, বিদেশ থেকে এই বেলী ব্রীজের যাবতীয় মালামাল আমদানী করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালে বুড়িমারী স্থল শুল্ক ষ্টেশন চালু হওয়ার পর থেকে বুড়িমারী লালমনিরহাট বড়বাড়ী সড়কে মাত্রাতিরক্তি মালামাল বোঝাই ট্রাক চলাচল শুরু হয়। এই সড়কটিতে ৭ থেকে সর্বোচ্চ ১০ মেট্রিকটন মালামাল বোঝাই ট্রাক চলাচলের উপযোগী।সেখানে এই সড়ক পথে সর্বনিম্ন ২৫ মেট্রিকটন সর্বোচ্চ ৪০ মেট্রিকটন মালামাল বোঝাই ট্রাক চলাচল করছে। ফলে সড়কটি যানবাহন চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ে। ইতোমধ্যে সড়কটি পুনঃ মেরামত ও সংস্কারে শতাধিক কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। আবারও সড়কটি যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ে। চলতি আর্থিক বছর ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটি পাটগ্রাম থেকে ভোটমারী পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার পুনঃ মেরামত করা হয়েছে। বর্তমানে ভোটমারী থেকে বড়বাড়ী পর্যন্ত সড়ক চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে সড়কটির বাকী অংশ মেরামত করার জন্য পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।রাজনীতি বাজীর দরুন এই সড়কটি ক্ষমতাসীন দলের নেতা কর্মী ও পরিবহন শ্রমিক ও প্রশাসনের কোটি কোটি টাকা অবৈধভাবে আয়ের জন্য মাত্রাতিরিক্ত মালামাল বোঝাই ট্রাক চলাচল অব্যাহত রয়েছে। বুড়িমারী স্থল বন্দরে ও ট্রাকের মালামাল ওজন পরিমাপের জন্য ওয়েব্রীজ স্থাপন করা হলেও স্বার্থনেষী মহলের কারণে কয়েকদিন চালু থাকার পর তা অকেজো হয়ে যায়।এদিকে পাটগ্রামে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক একটি ওয়েব্রীজ স্থাপনের জন্য ঘর নির্মাণ সহ অন্যান্য কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু বিগত ৩ বছরেও অজ্ঞাত কারনে চালু হচ্ছে না। প্রতি বছর রাজনৈতি নেতা, পরিবহন শ্রমিকসহ সরকারি বিভিন্ন সংস্থার কোটি কোটি টাকায় অবৈধ চাঁদাবাজীর জন্য এই সড়কে অতিরিক্ত ট্রাক বোঝাই মালামাল পরিবহন অব্যহত রয়েছে।

জনদুর্ভোগ

আপনার মতামত লিখুন :